‘শরীর ঢাকো নয়তো বিমান থেকে নেমে যাও,

গায়ে পোষাক থাকলেও স্বল্প বসনের অযুহাতে এক তরুণীকে প্লেন থেকে নেমে যেতে হুমকি দিয়েছেন বিমানের ম্যানেজার ও কয়েকজন ক্রেবিন ক্রু। সম্প্রতি ঘটনাটি ঘটে ইংল্যান্ডের একটি বিমানবন্দরে। এমিলি ও কনার নামে ব্রিটিশ ওই তরুণী টুইটারে নিজেই তার বাজে অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম ‘ডেইলি মিরর’ তাদের এক প্রতিবেদনে ঘটনাটি সামনে এনেছে। তারা জানিয়েছে, বার্মিংহাম থেকে টেনেরিফ ফেরার জন্য টমাস কুক এয়ারলাইন্সের টিকিট কেটে রওয়ানা হয়েছিলেন এমিলি। তার পরনে ছিল কমলা রংয়ের প্যান্ট ও স্প্যাগেটি স্ট্র্যাপ দেওয়া ক্রপ টপ। কিন্তু বিমানে ওঠার পর কয়েকজন কেবিন ক্রু তার কাছে এসে বলেন তোমার গায়ে স্বল্প পোষাক রয়েছে। শরীর ঢাকো, গায়ে আরও কাপড় জড়াও নয়তো নেমে যাও। এ ঘটনার পর এমিলি নিজেই একটি টুইটে বিষয়টি জানিয়েছেন।

টুইটার পোস্টে এমিলি ও কনার লিখেছেন, বার্মিংহাম থেকে টেনেরিফ আসছিলাম। এয়ারপোর্টের সিকিউরিটি চেক কোথাও কোনো সমস্যা হয়নি। কিন্তু প্লেনে ওঠার পরেই কেবিন ম্যানেজারসহ চার কেবিন ক্র‌ু এসে আমাকে ঘিরে ধরে। আমার পোষাকের ওপরে জ্যাকেট না পরলে প্লেন থেকে আমাকে নামিয়ে দেওয়া হবে বলে হুমকি দেয়। বলে শরীর ঢাকো, গায়ে আরও কাপড় জড়াও নয়তো নেমে যাও।

তিনি আরও লিখেছেন, আমার পোশাক কোনো যাত্রীর সমস্যা হচ্ছে কিনা, তা জানতে চাই আমি। কেউ কোনো উত্তর দেয়নি। আমি ওদের সঙ্গে তর্ক করায় ওরা আমার ব্যাগ ধরে টানাটানি শুরু করে। সেই সময় এক যাত্রী আমার উদ্দেশ্যে আপত্তিজনক মন্তব্য করে। তাকে কেউ কিছুই বলে না। বাধ্য হয়ে আমি জ্যাকেট পরে নিলে তবেই আমাকে ছেড়ে যায় ওই বিমানকর্মীরা।

টুইটারে অবশ্য প্রায় সবাই তাকেই সমর্থন করেছেন। তার পোশাকে কোনো সমস্যা নেই বলেও মন্তব্য করেছেন অনেকে। আধুনিক যুগে ইংল্যান্ডেই তাকে এ ধরনের ব্যবহারের মুখে পড়তে হবে, তা স্বপ্নেও ভাবেননি বলে জানিয়েছেন এমিলি ও কনার।