চোয়াল ব্যথার পেছনে থাকতে পারে যেসব স্বাস্থ্য সমস্যা

ঘুম থেকে উঠে যদি দেখেন চোয়াল ব্যথা করছে, অথবা চোয়াল ‘লক’ হয়ে গেছে, এমনকি খাওয়া বা হাই তোলার সময়ে চোয়াল ব্যথা করছে, তাহলে এর পেছনের কারণ আপনার জেনে রাখা উচিত। কী করে এই ব্যথা দূর করবেন, সেটাও জেনে নিন। চোয়ালে ব্যথা হতে পারে অনেক কারণেই। কয়েক ঘণ্টার বেশি সময় ব্যথা থাকা, বা মাঝেমাঝেই ব্যথা দেখা দিলে ডাক্তার দেখানো উচিত। এই ব্যথা দূর করতে সাধারণ দাঁতের ডাক্তার আপনার সাহায্য করতে পারেন।

১) টিএমডি

টেম্পোরোম্যান্ডিবুলার জয়েন্ট ডিজঅর্ডার (টিএমডি) হলো চোয়ালের হাড় ও মাথার খুলির সন্ধির একটি সমস্যা। চোয়ালে ব্যথা ও অসাড়তা তৈরি করে এ সমস্যাটি। টিএমডিতে মৃত্যুর ভয় নেই, কিন্তু তা খুবই যন্ত্রণাদায়ক। সাধারণত চোয়াল ও তার আশেপাশে ব্যথা, ঘাড়, কাঁধ, মুখ ও কানে ব্যথা হয় এ সমস্যায়। শুধুব্যথা নয়, বরং চোয়াল লক হয়ে যেতে পারে, মুখ খোলা ও বন্ধ করা সময় খট করে শব্দ হতে পারে, কামড়ানো ও চিবানোর সময়ে অস্বস্তি হতে পারে ও মুখের পাশে প্রদাহ হতে পারে। ব্যথার ওষুধ ও চোয়ালে সেঁক দেওয়ার মাধ্যমে এই ব্যথা কমানো যায়, তবে দাঁতের ডাক্তার দেখালে সমস্যাটির স্থায়ী সমাধান করা সম্ভব।

২) দাঁত কিড়মিড় করা

জাগ্রত অবস্থায় রাগে বা হতাশায় চোয়াল শক্ত করে ফেলা ও দাঁত কিড়মিড় করা অসাভাবিক কিছু নয়। কিন্তু অনেকেই ঘুমের মাঝে এ কাজটি করেন। তা দাঁতের ক্ষতি করে ও চোয়ালে ব্যথা তৈরি করে। শারীরিক, মানসিক ও বংশগত কিছু কারণে ঘুমের মাঝে দাঁত কিড়মিড় করতে পারেন একজন মানুষ, স্ট্রেস বা অ্যাংজাইটি, পারকিনসন’স ডিজিজ, কিছু ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এসব কারণেও সমস্যাটি হয়। এর জন্য মুখের ভেতরে গার্ড পরা যেতে পারে। স্ট্রেস থেকে সমস্যাটি হলে মেডিটেশন করা যেতে পারে।

৩) মাড়ির রোগ

মাড়িতে ইনফেকশন হলে ব্যথা হতে পারে চোয়ালে। এই ইনফেকশন হয় মুখ পরিষ্কার না করলে, হরমোনের পরিবর্তন, ডায়াবেটিস ও ধূমপানের কারণে। মূলত মাড়ির ব্যথাটাই চোয়ালে ছড়িয়ে পড়তে পারে। ব্যথার পাশাপাশি থাকতে পারে নিঃশ্বাসে দুর্গন্ধ, চিবানোর সময়ে ব্যথা, মাড়িতে পুঁজ, দাঁত আলগা হয়ে আসা, রক্তপাত ও মাড়ি ফুলে থাকা। এর যে কোনো একটি লক্ষণ থাকলেই ডেন্টিস্টকে দাঁত দেখানো জরুরী।

৪) দাঁতে পোকা

‘দাঁতে পোকা’ বা দাঁত ক্ষয় (ক্যাভিটি) শুধু দাঁতের ব্যথার জন্যই দায়ী নয়, বরং তা চোয়ালের ব্যথার পেছনেও কারণ বটে। ক্যাভিটির চিকিৎসা না করলে দাঁতের ভেতরে থাকা মাংস বা স্নায়ুতে ইনফেকশন হয়ে যায়। এই ইনফেকশন দাঁতের গোড়া থেকে হাড়ে চলে যায় ও চোয়ালে ব্যথা তৈরি করে। নিয়মিত দাঁতের ডাক্তার দেখান, যাতে ক্যাভিটি থেকে ইনফেকশন না হয়।

৫) আক্কেল দাঁত

সাধারণত ১৭ থেকে ২৫ বছর বয়সের মাঝে আক্কেল দাঁতের ব্যথা দেখা দেয়। অন্য দাঁতের কারণে যদি আক্কেল দাঁত মাড়ি থেকে পুরোপুরি বা আংশিক বের হতে না পারে, তাহলে তাতে ইনফেকশন হতে পারে, এতে চোয়ালে ব্যথা হতে পারে ও মুখের এক পাশ ফুলে যেতে পারে। ডেন্টিস্টের সাহায্য নিয়ে এই দাঁত বের করে ফেললেও ইনফেকশন সারতে সময় লাগে ও সাধারণত অ্যান্টিবায়োটিকের দরকার হয়।

৬) সাইনাসের ব্যথা

সাইনাসের ইনফেকশন, অ্যালার্জি ও ঠাণ্ডা লাগলে চোয়ালে ব্যথা হতে পারে। সাধারণত ঠান্ডা কেটে গেলে বা অ্যালার্জির ওষুধ খেলে এই ব্যথা কমে আসে। সাইনাস ইনফেকশনের জন্য ডাক্তার দেখিয়ে ওষুধ খাওয়া যেতে পারে।

সূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট