আপনার ত্বকের সুস্থতা বজায় রাখতে সাহায্য করবে যেসব ভিটামিন, দেখেনিন

ত্বক ভাল রাখতে আমরা কত কিছুই না করি। ত্বক পরিষ্কার রাখা, ফেসপ্যাক লাগানো, টোনিং করাসহ আরো অনেককিছু। কিন্তু অনেকসময় ত্বকের পুষ্টির কথা ভুলে যায় আমরা। রোজ ভিটামিনযুক্ত খাবার খাওয়া এজন্য অনেক জরুরি। এতে করে ত্বক উজ্জ্বল তো হবেই সাথে বলিরেখা ও ত্বকের অন্যান্য সমস্যাও কমবে। ত্বক ভালো রাখতে ভিটামিন এ,সি,ই ও ডি খাওয়া অনেক জরুরি।

ভিটামিন এ
অনেকেই জানেন না সানস্ক্রিন ও অ্যান্টি-এজিং ক্রিমের অন্যতম উপাদান ভিটামিন এ। ভিটামিন এ ত্বক আর্দ্র রাখে, ত্বকের তারুণ্য ফিরিয়ে আনে। এ ছাড়া ব্রণর সমস্যা থেকেও ত্বককে বাঁচায় ভিটামিন এ। প্রতিদিন খাবারের প্লেটে রাখুন গাজর, কুমড়ো, বেল পেপার, কমলালেবু, পেঁপে, ব্রকোলি, পালং শাক। এছাড়া কড মাছের তেল ও ডিমেও প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন এ রয়েছে। প্রতিদিনের একজন পূর্ণবয়স্ক পুরুষের ৭০০ মাইক্রোগ্রাম ও একজন পূর্ণবয়স্ক নারীর ৯০০ মাইক্রোগ্রাম ভিটামিন এ রাখা উচিত।

ভিটামিন সি
ত্বকের ক্যানসারের ঝুঁকি কমায় ভিটামিন সি। ত্বকের যেকোনও দাগ বা ক্ষত সারাতে এর কোনও বিকল্প নেই। ক্ষতিকর অতিবেগুনি রশ্মির ফলে ত্বকের যে ক্ষতি হয়, তা থেকেও বাঁচাতে পারে এই ভিটামিন। এছাড়া টানটান রাখে ভিটামিন সি। প্রতিদিন আঙুর, কমলালেবু, স্ট্রবেরির মতো ফল খাওয়ার চেষ্টা করুন। এছাড়া টমেটো,ক্যাপসিকাম, রেড বেলপেপার, ব্রকোলিতে ভিটামিন সি রয়েছে। ত্বক ভাল রাখতে প্রতিদিন একজন পূর্ণবয়স্ক পুরুষের ৯০ মিলিগ্রাম ও পূর্ণবয়স্ক মহিলার ৭৫ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি প্রয়োজন।

ভিটামিন ই
উজ্জ্বল ত্বক পেতে হলে প্রতিদিনের খাবার তালিকায় ১৫ মিলিগ্রাম ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার রাখতেই হবে। ত্বকের জ্বালা ভাব, শুষ্কতার সমস্যা কমিয়ে ত্বককে আর্দ্র রাখে ভিটামিন ই। ত্বকের কালো দাগ ও বলিরেখা দূর করে ভিটামিন ই। চিনাবাদাম,ভেজিটেবল অয়েল ভিটামিন ই এর অন্যতম উৎস।

ভিটামিন ডি
ত্বককে জীবাণু ও ক্ষতিকর রাসায়নিকের হাত থেকে বাঁচায় ভিটামিন ডি। এর পাশাপাশি ত্বকের আর্দ্রতা রক্ষা করতেও ভিটামিন ডি-র ভূমিকা অনেক বেশি। প্রতিদিনের খাবারে ২০ মাইক্রোগ্রাম ভিটামিন ডি রাখা দরকার। ডি এর অভাব পূরণে দুগ্ধজাত খাবার যেমন মাখন,চিজ খেতে পারেন। এছাড়াও পাতে রাখুন মাছ, ডিম ও মাছের লিভারের তেল।bs

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© 2022 Tips24 - WordPress Theme by WPEnjoy