ক্যানসারের যেসব লক্ষণ অবহেলা করলেই বিপদ পুরুষের, হতে পারে মৃত্যুও!

ক্যানসারের কথা শুনলেই সবাই আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। এটি একটি দীর্ঘস্থায়ী অসুস্থতা। বয়স, জিন ও জীবনযাত্রার অভ্যাসের উপর নির্ভর করে ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়তে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মতে, ক্যানসার বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর দ্বিতীয় প্রধান কারণ।

যদিও স্তন, কোলোরেক্টাল, ফুসফুস, সার্ভিকাল ও থাইরয়েড ক্যানসার নারীদের মধ্যে সাধারণ। তবে ফুসফুস, প্রোস্টেট, কোলোরেক্টাল, পাকস্থলী ও লিভার ক্যানসারে আক্রান্তের সংখ্যা পুরুষদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি।

সবার শরীরেই যে ক্যানসারের লক্ষণ গুরুতরভাবে প্রকাশ পায়, তা কিন্তু নয়। অনেকের শরীরে ক্যানসারের লক্ষণ খুবই হালকাভাবে প্রকাশ পায়, যা সাধারণ ভেবে অনেকেই ভুল করেন।

বিশেষ করে ক্যানসারের বিভিন্ন লক্ষণ এড়িয়ে যান পুরুষরা। যা পরবর্তী সময়ে মৃত্যুর কারণ হতে পারে। জেনে নিন ক্যানসারের কোন লক্ষণগুলো এড়িয়ে যাওয়া পুরুষের জন্য বিপজ্জনক-

টেস্টিকুলার পরিবর্তন

পুরুষেল অণ্ডকোষের আকার, রং বা টেক্সচারের কোনো পরিবর্তন হলে অবশ্যই পরীক্ষা করতে হবে। নারীদের যেমন ঘন ঘন স্তন পরীক্ষা করতে বলা হয়, পুরুষদেরও অণ্ডকোষ পরীক্ষা করা জরুরি।

যদি দেখেন উভয় অণ্ডকোষ আকারে বড় হয়েছে বা কোনো পিণ্ড অনুভব করেন তাহলে তা মোটেও অবহেলা করবেন না। এটি টেস্টিকুলার ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। এমনটি দেখলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

ত্বকের পরিবর্তন

ত্বকের ক্যানসার নারী-পুরুষ উভয়েরই হতে পারে। আমেরিকান একাডেমি অব ডার্মাটোলজি অ্যাসোসিয়েশন অনুসারে, নারীদের তুলনায় পুরুষদের মেলানোমায় মারা যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

আপনি যদি ত্বকে অস্বাভাবিক কানো পিণ্ড, ঘা থেকে রক্তপাত, স্কেলিং, আঁচিল বা ফ্রেকলস দেখতে পান তাহলে ত্বক পরীক্ষা করান চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী।

প্রস্রাব করতে অসুবিধা হওয়া

প্রস্রাব করতে অসুবিধা হওয়া প্রস্টেটের সমস্যার কারণ হতে পারে। যদি এটি প্রস্রাব বা বীর্যের সঙ্গে রক্তপাত ঘটে, ব্যথা ও অস্বস্তি হয় কিংবা ইরেক্টাইল ডিসফাংশন অনুভব করেন তাহলে সতর্ক থাকুন। কারণ এটি প্রস্টেট ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। যা সময়মতো চিকিত্সা না করালে মৃত্যু পর্ন্ত হতে পারে।

একটানা কাশি

দীর্ঘস্থায়ী ও ক্রমাগত কাশি বিভিন্ন কারণে হতে পারে। তবে এই লক্ষণ মোটেও সাধারণ বিষয় নয়। যদি ঠান্ডা বা অ্যালার্জির উপসর্গ ছাড়া তিন সপ্তাহ বা তার বেশি সময় ধরে একটানা কাশি হয় তাহলে তা হতে পারে ফুসফুসের ক্যানসারের কারণ। এর সঙ্গে শ্বাসকষ্ট, কাশি থেকে রক্ত পড়লে অবিলম্বে ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

মুখ ঘা

ভিটামিনের ঘাটতি থেকে শুরু করে বিভিন্ন কারণে মুখে ঘা হতে পারে যে কারও। তবে দীর্ঘদিন এই সমস্যা না সারলে, ব্যথা হলে, ফোলাভাব ও অসাড়তা বোধ করলে সতর্ক হয়ে যান। কারণ এগুলো হতে পারে মুখের ক্যানসারের লক্ষণ। বিশেষ করে যারা তামাক চিবিয়ে খায় কিংবা ধূমপান করেন তাদের ক্ষেত্রে ওরাল ক্যানসার হওয়ার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি।

গিলতে সমস্যা

ভাইরাসজনিত ফ্লুর কারণে গলা ব্যথায় ভোগেন কমবেশি সবাই। তবে দীর্ঘদিন গলায় ব্যথা ও গিলতে সমস্যা হলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। এটি গলা ও ফুসফুসেরে ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে।

রক্তাক্ত মল

মলের সঙ্গে রক্ত পড়ার সমস্যা ফিসার বা হেমোরয়েওেডের কারণ হতে পারে। যা চিকিত্সাযোগ্য ও জীবনের জন্য হুমকিস্বরূপ নয়। তবে পেটে অস্বস্তি ও মলের সঙ্গে রক্ত পড়া আবার কোলন ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। তাই এই সমস্যাকেও পুরুষরা অবহেলা করবেন না।

ওজন কমে যাওয়া

কোনো কারণ ছাড়াই হঠাৎ ওজন কমা কিন্তু মোটেও ভালো লক্ষণ নয়। এটি ডায়াবেটিস, থাইরয়েড, প্রদাহজনক অন্ত্রের রোগ কিংবা বিভিন্ন রোগের কারণ হতে পারে। আবার ওজন কমে যাওয়া বিভিন্ন ক্যানসারের লক্ষণও হতে পারে। তাই ওেজন কমে যাওয়ার সমস্যাকেও হেলাফেলা করবেন না।

ক্রমাগত ক্লান্তি

ক্লান্তি সব রোগেরই আগাম লক্ষণ। সাধারণ সর্দির সমস্যাতেও ক্লন্তি দেখা দেয়। তবে আপনি যদি এক মাসেরও বেশি সময় ধরে ক্লান্ত বোধ করেন কিংবা হঠাৎ শ্বাসকষ্ট অনুভব করেন তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। বিশেষজ্ঞদের মতে, ক্রমাগত ক্লান্তি লিউকেমিয়া ও লিম্ফোমা ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে।TS

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© 2022 Tips24 - WordPress Theme by WPEnjoy