শারীরিক সম্পর্কের ইচ্ছা বাড়াবে যে ৭টি খাবার, জেনেনিন বিস্তারিতভাবে

বিবাহিত জীবনের অন্যতম গোপনীয় সৌন্দর্য হলো শারীরিক সম্পর্ক। একটি সুন্দর দাম্পত্য জীবন কাটাতে এর অপরিহার্যতা অস্বীকার করার উপায় নেই। কিন্তু অনেকের ক্ষেত্রে এই সম্পর্কের ইচ্ছায় শিথিলতা দেখা দেয়। এটি হতে পারে নানা কারণে। আর এর ফলে দাম্পত্য জীবনে অশান্তি ও অস্থিরতা বাড়ে।

এবার সেই চিন্তা একেবারে মন থেকে মুছে ফেলুন। কারণ বেশকিছু পুষ্টিকর খাবার রয়েছে যা আমাদের শরীরে ভিটামিন ও মিনারেলের ভারসাম্য রক্ষা করে এন্ড্রোক্রাইন সিস্টেম কার্যকর রাখে। এন্ড্রোক্রাইনের কাজ শরীরে ইস্ট্রোজেন এবং টেস্টোস্টেরন উৎপাদন করা, আর এই ইস্ট্রোজেন এবং টেস্টোস্টেরন আপনার শারীরিক সম্পর্কের ইচ্ছা জাগানোর ক্ষেত্রে অত্যন্ত জরুরি।

পাঠকদের জন্য সেই সাত খাবারের তালিকা তুলে ধরা হল-

দুধ- প্রতিদিন একগ্লাস দুধ খাওয়ার অভ্যাস থাকে অনেকেরই। খাঁটি দুধ, দুধের সর, মাখন ইত্যাদিতে বেশি পরিমাণ প্রাণিজ-ফ্যাট আছে যেটা শারীরিক সম্পর্কের ইচ্ছা বাড়ায়।

ডিম- পুষ্টিকর খাবারের তালিকায় উপরের দিকেই রয়েছে ডিমের নাম। ডিম শারীরিক সম্পর্কের চাহিদা বাড়াতে ভূমিকা রাখে। ডিমে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি-৬ থাকে যা হরমোন লেভেলের ভারসাম্য রক্ষা করে এবং ক্লান্তি দূর করে।

কলা- অনীহা দূর করে শারীরিক সম্পর্কের ইচ্ছা বাড়াতে প্রতিদিন অন্তত একটি করে কলা খান। কলায় প্রচুর পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন বি এবং ব্রুমাইল্ড এনজাইম থাকে। এইসব উপাদান শারীরিক চাহিদার আসক্তি বাড়ায়।

কফি- ক্লান্তি কাটাতে যেমন কফির জুড়ি নেই তেমনই এর রয়েছে আরও অনেক উপকারিতা। এটি শারীরিক সস্পর্কের ইচ্ছা বাড়ানোতে বিশেষ ভূমিকা রাখে। কফিতে যে ক্যাফেইন থাকে তা আপনার যৌনতার মুড ঠিক রাখে।

মাছ- এমনিতেও পুষ্টিতালিকা ঠিক রাখতে প্রতিদিন পাতে মাছ থাকা চাই। ফ্যাটযুক্ত মাছ আপনার যৌন ইচ্ছা বাড়ায়। বিশেষ করে সামুদ্রিক মাছ, কারণ এইসব মাছে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড থাকে।

বাদাম- প্রতিদিন একমুঠো করে বাদাম খাওয়ার অভ্যাস করুন। বাদামে প্রচুর জিঙ্ক থাকে। এই জিঙ্ক শুক্রাণুর সংখ্যা বাড়ায় এবং শক্তিশালী শুক্রাণু তৈরি করে। যারা খাদ্যের মাধ্যমে শরীরে কম জিঙ্ক গ্রহণ করে তাদের বীর্য এবং টেস্টোস্টেরনের ঘনত্ব দুটিই কমে যায়।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© 2022 Tips24 - WordPress Theme by WPEnjoy